তর্কের যে নিয়ম প্রশ্নহীনভাবেই গ্রাহ্য তার বাইরের তর্ক

কান ধরলেও আর কান ধরা হবে না

এই যে অনলাইনে কান ধরাধরি প্রতিবাদ চলতেছে এর ফল সুদূরপ্রসারী। সিরিয়াসনেসরে ভাইঙ্গা দিতেছে এই প্রতিবাদ। এইটার আরো নানান বিধ্বংসী রূপ সামনে দেখা যাবে।

অনেকের খুব হতাশা কান ধরা অলাদের কাছে। যেন ওনারা সরকার পরিবর্তন করতে চাইছিলেন! ওনারা কান ধইরা ছবি আপ করতেই চাইছেন। আপনারা বেশি না চান ওনাদের কাছে।

আর প্রতিবাদ কখনোই বিপ্লব না। প্রতিবাদ সব সময়ই মালিক লোক বা আব্বা-আম্মাদের কাছেই করা হয়। প্রতিবাদ মাত্রই সফট। কানে ধরাধরি মূলক প্রতিবাদও সফটই হবে।

তবু রাজনৈতিক ধরনের প্রতিবাদের চাইতে কালচারাল ধরনের প্রতিবাদ শক্তিশালী। এতে অ্যাক্ট থাকে। সময়ের নবীন ভূমিকা লোকে তৈরি করে। অত সফট না।

কান ধইরা খাড়ায় থাকা কত ইজি কইরা দিল এই প্রতিবাদ। এইটা অর্জন। কান ধরার অর্থ চেন্জ হইয়া গেল। কান ধরলেও আর কান ধরা হবে না বা যাবে না।

রাজনৈতিক ভাবে এই জিনিস অর্জিত হওনের না। এইটা সাংস্কৃতিক নাট্য। ভাষা বদল।

আপনারা কী আশা করছিলেন? সরকার পরিবর্তনের আন্দোলন করবে পিপল?

হা হা। বিরোধী দলেরই খবর নাই আর পিপল!

১৭/৫/২০১৬

Leave a Reply