মৃত পিয়াস করিম যেভাবে আপনার বুদ্ধিজীবীতাকে সংকটে ফেলায় দেয়!

অধ্যাপক পিয়াস করিমের রাজনৈতিক অবস্থান আর আমার রাজনৈতিক অবস্থান ভিন্ন। কিন্তু পিয়াসকে শহীদ মিনারে শেষ শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করতে না দেওয়ার এই কার্পণ্যে আমি খুব আশাহত।

– জনৈক জনৈক

 

এই ‘ওনার রাজনীতি আমার না’ বইলা নেওয়ার রাজনীতির যে দুই নাম্বারি তার গলদগুলি আসেন দেখি:

১. পিয়াস যেই রাজনৈতিক অবস্থানে ছিলেন সে রাজনৈতিক অবস্থান থিকা কেউ কথা বললে আপনিও শোনেন না বা শ্রদ্ধা দেখান না।

২. মানে হইল, পিয়াসের রাজনৈতিক অবস্থানের প্রতি আপনার বিরোধ থাকার পাশাপাশি অশ্রদ্ধাও আছে।

৩. আপনার যেই অশ্রদ্ধা সেই একই অশ্রদ্ধা এই নোশ্রদ্ধা গোষ্ঠিরও আছে।

৪. কিন্তু আপনি ভলতেয়ার পড়ছেন তাই আপনি যার মতে মতি না তারও অধিকার নিয়া লড়াই করতে চান।

৫. পিয়াসরে করুণা করার মাধ্যমে আপনার অবস্থানই যে সঠিক সেই ঝাণ্ডা উড়াইতেছেন।

৬. এবং এই শ্রদ্ধা জ্ঞাপনে বাধা তৈরিকে আপনি ‘তোমরা এইটা ছাইড়া দিলেই পারতা’-মূলক একটা ঐচ্ছিক বিষয়ে পরিণত করতে চাইতেছেন।

মৃত পিয়াস করিম শহীদ মিনারে যাওয়ার ব্যাপারে খুব আগ্রহী কি?
মৃত পিয়াস করিম শহীদ মিনারে যাওয়ার ব্যাপারে খুব আগ্রহী কি?

৭. পিয়াস নয় বরং পিয়াস বিরোধীদের ধ্বসে পড়তে থাকা সম্মান রক্ষা করাই আপনার মূল লক্ষ্য।

৮. আপনি কখনোই গুরুত্বপূর্ণ বুদ্ধিজীবী ছিলেন না, সেইটা আপনি জানেনও না।

৯. এবং পিয়াস আপনাদের থিকা বড় বুদ্ধিজীবী ছিল ওনার এইসব সততার যেহেতু অভাব ছিল না জাস্ট সেই কারণেই।

১০. পিয়াসকে শহীদ মিনারে যাইতে না দেওয়া যে একটা অপরাধ তা আপনার মুখ থেকে বাণী আকারে বাইর হইলে আপনি পুনরায় বুদ্ধিজীবীতে পরিণত হইতে পারবেন।


Leave a Reply