Category শিল্প-সাহিত্য

সৈয়দ শামসুল হক ও পাকিস্তান থেকে বাংলাদেশ

তারা বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পরে দেশের পক্ষে ছিলেন কিনা বা আছেন কিনা তাই বিচার্য বিষয়।

উপন্যাসে কৃতজ্ঞতা স্বীকার না করলেও চলে

উপন্যাসে বাস্তব এবং নথিসমূহ থিকা বিনা কৃতজ্ঞতায় তথ্য সন্নিবেশ করা যাইতে পারে বইলা আমি মনে করি।

মহাশ্বেতা, প্রতিবাদী সাহিত্য যে কারণে আকামের

আর সাহিত্যিকরাও শুরু থিকা শেষ ভদ্রসমাজেরই আইটেম।

ভিন্ন ভিন্ন উপন্যাসে একই চরিত্র থাকার হুমায়ূন সমস্যা

বড়ভাই হুমায়ূন আহমেদের চারপাশে অগুনতি তার বানানো ক্যারেক্টাররা ঘুরাঘুরি করতো।

হুমায়ূন আহমেদের উপন্যাসের ভাষা

এই বঙ্গে অবশ্য হুমায়ূনের সেই সুযোগ নাই।

সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ, মাঝারি

তার উপন্যাসের চরিত্ররাও তার মতই লেখক ছিলেন একেক জন।

বাংলা কবিতায় কেন ‘দোরা কাউয়া পেয়ারা গাছে’ অতীব গুরুত্বপূর্ণ কবিতা

প্রকৃতিরে সৌন্দর্যে বা স্বর্গে পরিবর্তিত করা ছাড়া শিল্প বা সাহিত্যের ভিন্ন উদ্দেশ্য নাই এদের কাছে।

সাহিত্যে অভিজ্ঞতার গুরুত্ব নাই

সারাদিন আপনি যা করতেছিলেন তার সবই আপনার অভিজ্ঞতা না।

দেশে ঘাসের মালিক কারা

ঘাস নিয়া কথা বলতে গেলেও রবীন্দ্রনাথরে ট্যাক্স দিয়া যাইতে হবে!

বৃহন্নলার বিরুদ্ধে ভারতপন্থীদের অভিযোগ হালকা, বায়বীয় ও দুর্বল

রবীন্দ্রনাথ করছেন না এই কাম ? বঙ্কিম করছেন না? নিজের নামেই তো করছেন।

« Older posts

© 2020 কুতর্কের দোকান — Powered by WordPress

Theme by Anders NorenUp ↑